মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৮ মে ২০১৬

তুলা ফসলের পর্যায় ভিওিক ব্যবস্থাপনা কৌশল

তুলা ফসলের পর্যায় ভিওিক ব্যবস্থাপনা কৌশল

তুলা ফসলের ব্যবস্থাপনা কৌশল

ক্রমিক নং

পর্যায়/আপদ

পদ্ধতি

গাছের বৃদ্ধি পর্যায় ভিওিক সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা

১.         বপনপূর্ব

 

 

 

 

১। গভীর ভাবে চাষ দিয়ে মাটি উলট পালট করে দিতে হবে।

২। কাছাকাছি  পোকার আশ্রয় দান কারী আগাছা ধ্বংস করতে হবে।

৩। নিকটস্থ পোকার আশ্রয়দানকারী বিকল্প ফসলে ভালভাবে পোকা  

    নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

২.       বপন সময়

 

 

মাটি ও বীজ বাহিত রোগ

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

১। রোগ প্রতিরোধী জাত ব্যবহার করতে হবে।

২। রোগমুক্ত মান সম্পন্ন বীজ ব্যবহার করতে হবে।                                                          

রাসায়নিক পদ্ধতি

১। প্রয়োজনে এসিড ডিলিন্টিং করে বীজ ব্যবহার করা যেতে পারে।

২। প্রয়োজনে ছত্রাকনাশক দ্বারা বীজ শোধন করা যেতে পারে।

শোষক পোকা

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

১। আগাম বীজ বপন করতে হবে।

২। বপন দুরতব যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে এবং সুষম সার 

     ব্যবহার করতে হবে।

রাসায়নিক পদ্ধতি

৩। কীটনাশক দ্বারা বীজ শোধন করে বপন করতে হবে।

আগাছা

রাসায়নিক পদ্ধতি

বপন পূর্ব/বপন পরবর্তি-আগাছানাশক প্রয়োগ করা যেতে পারে।

 

৩.      অংগজ বৃদ্ধি পর্যায় (২০-৫০দিন বয়স পর্যমত্ম )

 

 

আগাছা

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

১। গ্যাপ ফিলিং ও চারা পাতলা করনের সাথে সাথে নিড়ানী দিয়ে আগাছা দমন করতে হবে।

শোষক পোকা

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

১। পোকার বংশবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে ফাঁদ ফসল ও সাথী ফসল চাষ করে উপকারী পোকা ও পাখি বসার ব্যবস্থা করতে হবে ।

জৈবিক দমন

২। উপকারী পোকামাকড় যেমন লেডি বার্ড বিটল এর বংশবৃদ্ধির সুযোগ দিতে হবে।

৩। নিম এর তেল স্প্রে করা যেতে পারে ।

রাসায়নিক দমন

৪। উপরোক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ সত্ত্বেও পোকার আক্রমন ইটিএল অতিক্রম করে তবে অনুমোদিত কীটনাশক স্প্রে করতে হবে।

ডগা ছিদ্রকারী পোকা

যান্ত্রিক দমন

১। পোকা হাত বাছাই করে মেরে ফেলতে হবে।

২। জমিতে গাছের ডাল পুতে পাখি বসার ব্যবস্থা করতে হবে।

আধুনিক চাষাবাদ

৩। ইউরিয়া ও এমওপি একত্রে উপরি প্রয়োগ করতে হবে ।

রাসায়নিক দমন

৪।  পোকার আক্রমন ইটিএল অতিক্রম করলে মাএানুযায়ী অনুমোদিত 

     কীটনাশক স্প্রে করতে হবে ।

অমেরিকান বোলওয়ার্ম ও অাঁচা পোকা

মনিটরিং

১। চিটা গুডের ফাঁদ স্থাপন করতে হবে

যান্ত্রিক দমন

২। হাত বাছাই করে পোকা/পোকার কলোনী ধ্বংস করতে হবে।

রাসায়নিক দমন

৩। ইটিএল অতিক্রম করলে মাত্রানুযায়ী অনুমোদিত কীঢনাশক স্প্রে করতে হবে।

সাদামাছি

মনিটরিং

১। হলুদ রং টিনে আঠালো ফাঁদ স্থাপন করতে হবে।

রোগ

আধুনিক চাষাবাদ

১। আক্রামত্ম গাছ তুলে পুড়িয়ে ফেলতে হবে।

 

 

 

৪ .     প্রাথমিক বোলধারণ পর্যায় (৫০-৮০দিন বয়স)

 

 

 

আগাছা

যান্ত্রিক দমন

১। নিড়ানী দিয়ে আগাছা দমন করে গোড়া বেধে দিতে হবে।

শোষক পোকা

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

১। ফাঁদ ফসল ও সাথী ফসল দ্বারা পোকা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

জৈবিক পদ্ধতি

২। উপকারী পোকা মাকড়ের বংশবৃদ্ধির সুযোগ দিতে হবে।

বোলওয়ার্ম ও অাঁচা পোকা

 

মনিটরিং

১। চিটাগুড়ের ফাঁদ বা কেরোসিন ফাঁদ দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

২। ফাঁদ ফসল ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে পোকা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

জৈবিক দমন

৩। ট্রাইকোগ্রামা পাওয়া গেলে প্রতি হেক্টরে ১৫ লক্ষ ছেড়ে দিতে হবে।

যান্ত্রিক দমন

৪। ক্ষেতে পাখি  বসার জন্য গাছের ডাল পুঁতে দিতে হবে।

৫। হাত বাছাই করে কীড়া ধ্বংস করতে হবে।

রাসায়নিক দমন

৬। বিভিন্ন গ্রম্নপের অনুমোদিত কীটনাশক মাত্রানুযায়ী পর্যায়ক্রমে

    পরিবর্তন করে স্প্রে করতে হবে।

 

সাদামাছি

মনিটরিং

১। হলুদ রংয়ের আঠালো ফাঁদ বিঘাপ্রতি ৪টি স্থাপন করতে হবে।

জৈবিক দমন

২। নিম জাতীয় কীটনাশক ব্যবহার করতে হবে।

৫.       সর্বোচ্চ ফুল ও বোল ধারণ পর্যায় (৮০-১২০)

 

 

 

সাদামাছি

মনিটরিং

১। হলুদ রংয়ের আঠাঁলো ফাঁদে পোকা পর্যবেক্ষণ করতে হবে।

জৈবিক দমন

২। নিম জাতীয় কীটনাশক স্প্রে করতে হবে।

রাসায়নিক দমন

৩। ইটিএল অতিক্রম করলে ১ম গ্রম্নপের কীটনাশক স্প্রে করতে হবে।

বোলওয়ার্ম ও অাঁচা পোকা

মনিটরিং

১। চিটাগুড়/ফেরোমন ফাঁদ স্থাপন করে পর্যবেক্ষণ করতে হবে।

যান্ত্রিক দমন

২। আক্রামত্ম ফুল,কুঁড়ি,ডগা,বোল,পাতা সংগ্রহ করে ধ্বংস করতে হবে।

৩। পোকার কীড়া সংগ্রহ করে ধ্বংস করতে হবে। 

জৈবিক দমন

৪। বিটি/এনপিভি পাউডার প্রাপ্তি সাপেক্ষে হেক্টর প্রতি ২৫০-৫০০এমএল

    ব্যবহার করতে হবে।

৫। নিম জাতীয় কীটনাশক ব্যবহার করতে হবে।

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

৬। সিবি-৯ ও সিবি-৫ এর ক্ষেত্রে ১৮-২০টি নোড হলে গাছের র্শীর্ষ ডগা

    ভেংগে দিতে হবে।

রাসায়নিক পদ্ধতি

৭। ইটিএল অতিক্রম করলে মাত্রানুযায়ী অনুমোদিত কীটনাশক স্প্রে

    করতে হবে।

৬.     বোল পরিপক্ক পর্যায় (১২০-১৫০ দিন বয়স)

 

 

 

সাদা মাছি ও জ্যাসিড

জৈবিক দমন

১। নিম জাতীয় কীটনাশক স্প্রে করতে হবে।

রাসায়নিক দমন

২। ইটিএল অতিক্রম করলে ১ম গ্রম্নপের কীটনাশক মাত্রানুযায়ী স্প্রে

    করতে হবে।

বোলওয়ার্ম

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

১। ফলিয়ার স্প্রেও সেচ প্রয়োগ বন্ধ করতে হবে যাতে গাছের জীবনকাল

     বৃদ্ধি না পায়।

মনিটরিং

২। চিটাগুড়ের ফাঁদ পরিস্কার করে নতুনভাবে স্থাপন করতে হবে।

যান্ত্রিক পদ্ধতিতে দমন

৩। গাছের আক্রামত্ম ফুল, বোল,কুঁড়ি, পাতা সংগ্রহ করে ধবংস করতে হবে।                                                                                                                                      

লাল গান্ধি পোকা

যান্ত্রিক দমন

১। পোকা দেখা মাত্র পোকা পলিথিন প্যাকেটে নিয়ে ধবংস করতে হবে

আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি

২। জমির আইলে ফাঁদ স্থাপন করে পোকার কলোনী পায়ে পিসে ধবংস

    করতে হবে।

৭.      শেষবার তুলা উত্তোলনের পর 

 

 

 

 

১। তুলার জমিতে গরম্ন ছাগল চড়াতে উৎসাহিত করতে হবে, তাতে  

    পোকার কোকুন নষ্ট হবে।

২। তুলা গাছ কেটে এনে জমি থেকে দূরে সংরক্ষণ করতে হবে।

৩। কাটা গাছের বোলগুলো সংগ্রহ করে তা ধবংস করতে হবে।

             

 


Share with :
Facebook Facebook